বাংলাদেশ , শুক্রবার, ৭ মে ২০২১

করোনাভাইরাসের কারণে স্থবির হয়ে পড়েছে বিশ্ব ক্রীড়াঙ্গন।

লেখক : AjKMuSbt | প্রকাশ: ২০২০-০৩-১৫ ১৬:২১:১০

আন্তর্জাতিক আসর স্থগিত হয়ে যাচ্ছে। জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকী মুজিববর্ষ উপলক্ষ্যে ঘরোয়া খেলার সবচেয়ে বড় আয়োজন বাংলাদেশ গেমসও ইতিমধ্যে স্থগিত করা হয়েছে। আগামী ১ থেকে ১০ এপ্রিল হওয়ার কথা ছিল এই গেমস।

তবে বাংলাদেশ ফুটবল ফেডারেশন বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগ চলমান রাখার সিদ্ধান্ত নিয়েছে। শনিবার প্রফেশনাল লিগ কমিটির জরুরি সভায় দেশের ৭টি ভেন্যুতেই লিগ চালিয়ে নেয়ার এ সিদ্ধান্ত হয়েছে। বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড আজ (রোববার) থেকে শুরু করেছে ঢাকা প্রিমিয়ার লিগ। দেশের দুই প্রধান খেলারই শীর্ষ লিগ এখন চলছে।

এমন এক সময় আজ (রোববার) মওলানা ভাসানী স্টেডিয়ামে জাতীয় স্কুল হকির ফাইনালে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত হয়ে এ দুটি লিগ কিছুদিনের জন্য বন্ধ রাখার ওপর গুরুত্ব দিয়েছেন দেশের ক্রীড়ার অভিভাবক যুব ও ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী মো. জাহিদ আহসান রাসেল এমপি।

পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠানের পর ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রীকে প্রশ্ন করা হয়েছিল পড়শি দেশ ভারতেও সব খেলা বন্ধ করা হয়েছে। অথচ আমাদের এখানে ফুটবল লিগ চলছে, আজ থেকে ক্রিকেট লিগ শুরু হয়েছে। এ বিষয়ে আপনার মতামত কি?

জবাবে ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী বলেন, ‘আমরা যখন কিছুদিন আগে বাংলাদেশ গেমস করবো কি করবো না তা নিয়ে কথা বলেছিলাম তখন প্রধানমন্ত্রী বলেছিলেন, যেহেতু করোনাভাইরাসের কারণে অনেক কর্মসূচি স্থগিত করেছি তাহলে অবশ্যই খেলাধুলাকে স্থগিত করো। তারপর আমরা বাংলাদেশ গেমস স্থগিত করি। এরপর আগামী ১২ এপ্রিল ওআইসি ইয়ুথ ক্যাপিটালের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানও আমরা স্থগিত করেছি।’

ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী বলেছেন, ‘আপনারা জানেন বঙ্গবন্ধু আন্তঃবিশ্ববিদ্যালয় যে গেমস চলছিল সেটাও আজ থেকে স্থগিত করা হয়েছে। কারণ, এই খেলার সাথে অনেকের সম্পৃক্ততা আছে। অনেক শিক্ষার্থী খেলায় অংশ নিচ্ছে। ক্রিকেটে যে বল করেন তিনি মাঝেমধ্যে মুখের লালার সহযোগিতা নেন। এর মাধ্যমে রোগবালাইয়ের সংক্রমণ হওয়ার শঙ্কা থাকে। সেটা যে এই করোনা হবে, সেটাও কথা নয়, অন্য যে কোনো রোগের সম্ভাবনা তৈরি হতে পারে। রোগটি নিয়ে যেহেতু আতঙ্ক তৈরি হয়েছে সে কারণে আমরা এটা আপাতত বন্ধ করেছি। এখানে ৬ হাজারের মতো ক্রীড়াবিদ অংশ নিচ্ছেন। যে কারণে আমরা ঝঁকি নিতে চাই না’

ফুটবল লিগ প্রসঙ্গে ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী বলেছেন, ‘ফুটবলের ক্ষেত্রে আমরা বলবো এ ধরনের যেসব খেলায় মানুষের সংশ্লিষ্টতা বেশি রয়েছে সেগুলো শিফট করা উচিত। আমার কথা হচ্ছে যে, বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবার্ষিকীর অনুষ্ঠানেও আমরা ছাড় দিয়েছি। অনেক আয়োজন শিফট করা হয়েছে। তাই এ খেলাগুলো যদি আমরা ১৫ দিন বা এক মাস পিছিয়ে দেই পরবর্তীতে অবস্থা দেখে সেটা চালু করতে পারবো। আমি ফুটবল ফেডারেশনকে অনুরোধ করবো এ কাজটি যেন তারা শীঘ্রই করে।’

বিষয়টি নিয়ে শীর্ষ দুই ফেডারেশনের সঙ্গে কথা বলবেন কি না এমন এক প্রশ্নের জবাবে ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী বলেন, ‘আমি আজই ফুটবল ফেডারেশন ও ক্রিকেট বোর্ডের সঙ্গে কথা বলবো এ বিষয়ে নতুন করে কোনো চিন্তাভাবনা করা যায় কি না। বিষয়টাকে যেন তারা পুনর্বিবেচনা করে সে বিষয়ে বলবো। কারণ, আমি আগেই বলেছি ক্রিকেট খেলার সাথে মুখেরও একটা সম্পৃক্ততা আছে। এটা চিন্তা করেই তারা যেন বিষয়টি নিয়ে নতুন করে ভাবেন।’

Print Friendly, PDF & Email