বাংলাদেশ , রোববার, ৫ জুলাই ২০২০

কালীগঞ্জে ধর্ষিতা বিধবা ৮ মাসের অন্তঃসত্তা

লেখক : AjKMuSbt | প্রকাশ: ২০২০-০৫-২৯ ১৫:৪৯:২৯

কালীগঞ্জ (গাজীপুর) প্রতিনিধিঃ গাজীপুরের কালীগঞ্জে তিন সন্তানের জননী বিধবা নারীকে জোরপূর্বক ধর্ষণ করেছে সৎ দেবর হাবিবুর রহমান হাবু ও তার সহযোগী প্রতিবেশি মিলন বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। ধর্ষিতা ওই নারী বর্তমানে ৮ মাসের অন্তসত্তা।

 

ঘটনাটি ঘটেছে উপজেলার জাংগালিয়া ইউনিয়নের ৩ নং ওয়ার্ড দুবুরিয়া মোড়ল মৃত সুলতান মোড়লের বাড়ীতে। অভিযুক্ত লম্পট হাবিবুর রহমান হাবু (৪৫) জাংগালিয়া ইউনিয়নের দুবুরিয়া গ্রামের মৃত নায়েব আলীর ছেলে ও তার সহযোগী মিলন (৪৩) একই গ্রামের মৃত- আব্দুর রশিদের ছেলে।

 

এ ব্যাপারে ভিকটিম বাদী হয়ে কালীগঞ্জ থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করেন। অভিযোগের প্রেক্ষিতে থানার এস.আই শামসুদ দোহা ঘটনাস্থলে আসলে পুলিশের উপস্থিতিহ টের পেয়ে ঘটনার সাথে জড়িত অভিযুক্ত হাবিুরর রহমান ওরফে হাবু ও তার সহযোগী মিলন পালিয়ে যায়।

 

ভিকটিম ও অভিযোগ সূত্রে জানাযায়, স্বামী মৃত্যুর ১৫ মাস পরে সৎ দেবর হাবিবুর রহমান হাবু ও প্রতিবেশি মিলন আমাকে ক‚-প্রস্তাব দেয়। আমি তাদের প্রস্তাবে রাজি না হওয়ায় রাতের আঁধারে আমার ঘরের দরজা ভাঙ্গিয়া জোরপূর্বক ঘরে প্রাবেশ করে পালাক্রমে ধর্ষন করেন।

 

পরে বিষয়টি এলাকার স্থানীয় গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গকে অবগত করলে ওই লম্পট হাবু ও মিলন আমাকেসহ আমার সন্তানদের মেরে ফেলার হুমকী দেয়। পরে বিষয়টি আমি পরিবারকে অবগত করলে আমার বাবা আমাকে নেয়ার জন্য আমার স্বামীর বাড়ী আসেন।

 

এদিকে অভিযুক্ত ও তার পরিবারের লোকজন আমার পিতাকে নির্জনে ডাকিয়া নিয়ে সাদা কাগজে টিপ সহি নেয় এবং বিষয়টি কাউকে না বলার জন্য হুমকী প্রদান করে। এদিকে থানায় অভিযোগ দায়েরের পর বিবাদীরা অভিযোগ তোলে নেয়ার জন্য বাদী ও তার পরিবারের লোকজনদেরকে হুমকী দিচ্ছে বলেও অভিযোগ রয়েছে।

 

এ ব্যাপারে অভিযুক্ত হাবু ও মিলন সাথে যোগাযোগকরা হলে তারা একে অপরকে দোষারোপ করেন। এ ব্যাপারে কালীগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ এ.কে.এম মিজানুল হক জানান এই ঘটনায় পূর্ণাঙ্গ লিখিত অভিযোগ না পাওয়ায় মামলা নেয়া সম্ভব হচ্ছে না, অভিযোগ পাওয়ায় সাথে সাথে মামলা গ্রহণ করা হবে।

Print Friendly, PDF & Email

শেয়ার করুন